করোনা: বরিশালে ২ লাখ পরিবারকে সহায়তা

অবশ্যই পরুন

করোনা সংক্রমণ এড়াতে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বরিশালে নানামুখী কার্যক্রম পরিচালনা করছে জেলা প্রশাসন ও বরিশাল সিটি করপোরেশন।

সেনাবাহিনী, পুলিশ ও র‌্যাবের সহায়তায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার ভূমি, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সিটি করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করছেন। পাশাপাশি চলমান রাখা হয়েছে সরকারি খাদ্য সহায়তা প্রদান কর্মসূচি।

জেলা প্রশাসনের মিডিয়া সেল সূত্রে জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে এ পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ১০টি উপজেলায় ১ লাখ ৫০ হাজার ৭০০টি নিম্ন আয়ের ও কর্মহীন দরিদ্র পরিবারের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে মানবিক সহায়তা (খাদ্য সহায়তা) প্রদান করা হয়েছে।

অপরদিকে বরিশাল নগরের ৩০টি ওয়ার্ডের ৫৬ হাজার কর্মহীন, অসহায় ও দুস্থ পরিবারের মধ্যে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিটি করপোরেশেনর প্রশাসনিক মো. মোয়াজ্জেম হোসেন।

তিনি জানান, মেয়র সেরিনয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহের নির্দেশে গত ৩০ এপ্রিল থেকে নগরের কলোনিগুলোতে কর্মহীন, অসহায় ও দুস্থ পরিবারের ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম শুরু করা হয়। প্রথমে দিনের বেলা দেয়া হলেও এখন ত্রাণ রাতের বেলা অসহায় প্রতিটি মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিচ্ছে আমাদের কর্মীরা। পর্যায়ক্রমে ৩০টি ওয়ার্ডে ৫৬ হাজার কর্মহীন, অসহায় ও দুস্থ পরিবারের মধ্যে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়া হয়েছে। বর্তমান সংকট নিরসন না হওয়া পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলমান রাখার কথা জানিয়েছেন মেয়র। এরইমধ্যে মেয়রের উদ্যোগে সিটি করপোরেশনের ত্রাণ তহবিল খোলা হয়েছে। যেখানে মেয়র তার বেতন ও ভাতার ৩৫ লাখ ৫৪ হাজার টাকা দিয়ে দিয়েছেন। এছাড়া গত বুধবার পর্যন্ত এ তহবিলে ১ কোটি ৫ লাখ ৪ হাজার টাকা জমা পড়েছে।

এদিকে জেলা প্রশাসন জানিয়েছেন, এ পর্যন্ত গোটা বরিশাল জেলায় ২ হাজার ৩০০ মেট্রিকটন চাল, নগদ ৯৭ লাখ টাকা, শিশুখাদ্য বাবাদ ২১ লাখ টাকা  বরাদ্দ হয়েছে।

জেলা প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনের বাহিরে বরিশাল সদর আসনের সাংসদ ও পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীমের পক্ষ থেকে তার সংসদীয় এলাকায় প্রায় ১৫ হাজার, জেলা বাসদের পক্ষ থেকে ১০ হাজারসহ বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে কর্মহীন, অসহায় ও দুস্থ পরিবারের মধ্যে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

সার্বিক বিষয়ে জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান বলেন, করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী সব কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। জেলার কোনো মানুষ যাতে অভূক্ত না থাকেন সে ব্যাপারে জেলা প্রশাসন সর্বদা সচেতন রয়েছেন। পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান থাকবে দরিদ্র ও অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর।

সম্পর্কিত সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

কালকিনিতে বিষাক্ত সাপের ছোবলে মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু

মাদারীপুরের কালকিনিতে মাটির গর্তের মধ্যে থেকে মাছরাঙা পাখির ছানা ধরতে গিয়ে বিষাক্ত সাপের ছোবলে আবু হুমাইদ (১১) নামে এক...