গৌরনদীতে ফার্মের মুরগির বিষ্ঠার দুর্গন্ধ অতিষ্ঠ এলাকাবাসী, দায়িত্বশীলদের নীরবতায় অসহায় এলাকায় বাসী

অবশ্যই পরুন

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার গৌরনদী পৌর সভার ৩ নং ওয়ার্ডের বড় কসবা গ্রামের আইয়ুব আলী মৃধার ছেলে হারুন মৃধা গ্রামের ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় ব্রয়লার মুরগির খামার স্থাপন করেন। বর্তমানে খামারে প্রায় আড়াই হাজার মুরগি রয়েছে।

মুরগির বিষ্ঠার কারণে এলাকার পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। বিষ্ঠার দুর্গন্ধে খামারের চারদিকে মানুষের বসবাস করা কস্টসাধ্য হয়ে পড়ছে, পরিবেশের ভারসাম্য নস্ট হচ্ছে, অতিরিক্ত দুর্গন্ধে অতএলাকার লোকজনের স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে, উক্ত ভুক্তভোগীরা ফার্মের বিষ্ঠা দূরে ফালানের অনুরোধ করলে তিনি তাতে তোয়াক্কা করেন নাই, অথচ নীতিমালা অনুযায়ী, একটি মুরগির খামার স্থাপনের জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি ও প্রাণিসম্পদ কার্যালয় থেকে রেজিস্ট্রেশনভুক্ত হতে হয়।

নিয়মে আছে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা এবং জনগণের ক্ষতি হয় এমন স্থানে খামার স্থাপন করা যাবে না। হারুন মৃধা কোন নিয়ম নীতিমালা তোয়াক্কা করেনা,এলাকার সাধারন মানুষের উপর হুমকি ধামকি অব্যাহত রেখেছেন তিনি। বড় কসবা গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, খামারটির আশপাশে মুরগির বিষ্ঠা ছড়িয়ে–ছিটিয়ে আছে। পানিনিষ্কাশনের ব্যবস্থা নেই। খামারের চারপাশে বসতবাড়ি।

এসব বাড়ি থেকে তীব্র দুর্গন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। গ্রামের বাসিন্দা কালু ফকির বলেন, ‘আমার বাড়ির পাশেই খামার। বিষ্ঠা থেকে সব সময় দুর্গন্ধ ছড়ায়। আশপাশে বসবাস করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। উক্ত ভুক্তভোগীরা ইতিমধ্যে গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাছে ও পরিবেশ অধিদপ্তরের লিখিত অভিযোগ করলেও কোন প্রকার সমাধান না আসা তারা হতাশা প্রকাশ করছেন। তারা এখনো আশা বাদী যে গৌরনীদ উপজেলার প্রশাসন যথাযথ ভাবে উক্ত বিষয় সুদৃষ্টি দিবেন।

সম্পর্কিত সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

কুয়াকাটা পর্যটকের পদভারে মুখরিত

পরিচ্ছন্ন সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটায় পর্যটক দর্শনার্থীর ভিড় বেড়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে পর্যটকের আনাগোনা শুরু হয়। ক্রমশ পর্যটকের ভিড় বাড়তে থাকে।...