চাল ওজনে কম : চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা, দুই মেম্বারের দণ্ড

অবশ্যই পরুন

বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার জেলেদের জন্য বরাদ্দকৃত চালের ১৮৩ বস্তা চাল এক  ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরে আলমের বিরুদ্ধে র‌্যাবের পক্ষ থেকে রাতেই থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এর আগে বুধবার সন্ধ্যায় জেলেদের মধ্যে বিতরণকৃত চালে মাপে কম দেওয়ার অভিযোগে এই ইউনিয়নের সদস্য মো. রোকনউজ্জামান ও মো. জাকির হোসেনকে ভ্রাম্যমাণ আদালত এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ঘটনার পরপরই ইউপি চেয়ারম্যান নুরে আলম আত্মগোপানে চলে গেছেন।

অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া র‌্যাব-৮ এর সহকারী পুলিশ সুপার মুকুর চাকমা জানান,  জেলেদের ৪০ কেজির স্থলে ৩০ কেজি করে চাল দিয়ে ১০ কেজি করে আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া যায়। অভিযোগের ভিত্তিতে সন্ধ্যায় ওই ইউনিয়নের চাল বিতরণস্থলে র‌্যাব সদস্যরা অভিযান পরিচালানা করেন।

এ সময়ে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে ইউপি সদস্য মো. রোকনউজ্জামান ও মো. জাকির হোসেনকে আটক করা হয়। দুই ইউপি সদস্য চেয়ারম্যান নূরে আলম তাদেরকে ৩৫ কেজি করে চাল বিতরণের কথা স্বীকার করেন। পরবর্তীতে ৫ কেজি করে চাল ইউপি সদস্যরা রেখে জেলেদের মধ্যে ৩০ কেজি করে বন্টন করেছে।

দুই ইউপি সদস্যর স্বীকারক্তি অনুযায়ী তাদের আটক করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের পরিচালিত ভ্র্যাম্যমাণ আদালতে হাজির করা দুজনকে এক মাস করে বিনাশ্রম করাদণ্ড প্রদান করেন।

রাতেই র‌্যাব সদস্যরা কেদারপুর ইউনিয়নের স্টিমারঘাট এলাকায় নূরে আলমের মালিকানাধীন একটি ঘরে অভিযান পরিচালনা করে। তারা ঘরের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে ১৮৩ বস্তা সরকারি চাল উদ্ধার করে। পরে সেখানে নতুন তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ওই রাতেই র‌্যাব সদস্যরা বাদী হয়ে বাবুগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

সম্পর্কিত সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

কালকিনিতে বিষাক্ত সাপের ছোবলে মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু

মাদারীপুরের কালকিনিতে মাটির গর্তের মধ্যে থেকে মাছরাঙা পাখির ছানা ধরতে গিয়ে বিষাক্ত সাপের ছোবলে আবু হুমাইদ (১১) নামে এক...