নির্বাচনের প্রভাবে হঠাৎ বেড়েছে নিত্যপণ্যের দাম

অবশ্যই পরুন

স্টাফ রিপোর্টারঃ দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের নানা ঘটনা ঘটছে সারা দেশের প্রায় সবখানে। কোথাও সংঘাত-সহিংসতা, কোথাও হুমকি! তবে এসবের মধ্যে সবচেয়ে বড় প্রভাব পড়েছে নিত্যপণ্যের বাজারে।দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেশের অনেক রাজনৈতিক দলেরই অংশগ্রহণ নেই।

নির্বাচনের দিন হরতাল ডেকেছিল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। নির্বাচন নিয়ে দেশের মানুষের মধ্যে এক ধরনের শঙ্কাও রয়েছে। আর নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার আশঙ্কাও করছেন অনেকে। ফলে মানুষ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যপণ্য ক্রয় করতে বাজারে ভিড় করছেন। এতে করে হঠাৎ চাহিদা বাড়ায় বাজারে সবজিসহ অন্যান্য ভোগ্যপণ্যের দাম বেড়েছে।

সোমবার (৮ জানুয়ারি) সকালে সরেজমিনে রাজধানীর বিভিন্ন সবজির বাজার ঘুরে দেখা যায়, শীতের শুরুতে ৩০ টাকা বিক্রি হওয়া প্রতি পিস ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়। ফুলকপির মতো ৫০-৬০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া বেগুন এখন বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকায়।

প্রতি কেজি বিভিন্ন মানের শিম বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৮০ টাকায়, বাঁধাকপি ৫০ (প্রতিটি), লাউ ৮০ (প্রতিটি), মিষ্টি কুমড়া প্রতি কেজি ৫০ টাকা আর মুলা প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়। এছাড়া, পটল প্রতি কেজি ৮০ টাকা, শসা ৬০, বরবটি ১২০, শালগম ৫০, করলা ৮০, টমেটো ৮০, কাঁচা টমেটো ৪০, আলু ৭০, গাজর ৬০ ও পেঁপে প্রতি কেজি ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, শীতের শুরুতে সবজির দাম কম থাকলেও তফসিল ঘোষণার পর থেকে তা বাড়তে থাকে। তবে নির্বাচনকে ঘিরে রাজনৈতিক দলগুলোর হরতাল অবরোধের মতো কর্মসূচির কারণে তা আরও বেড়েছে। তাছাড়া নির্বাচনের কারণে অনেক কৃষক ভাবছেন, নির্বাচনের পরেই ফসল তুলে বিক্রি করবেন। সবকিছু মিলিয়ে বাজারে একটা প্রভাব পড়েছে।

এদিকে সবজির মতো ডিম ও মাংসের বাজারেও একই পরিস্থিতি দেখা গেছে। প্রতি কেজি ব্রয়লারে ১০ থেকে ১৫ টাকা ও প্রতি ডজন ডিমে দাম বেড়েছে ১০ টাকা। দুদিন আগে ১৯০ টাকায় বিক্রি হওয়া প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ২১০ টাকা ও কেজিতে ৩০ টাকা বেড়ে প্রতি কেজি সোনালি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৩৫০ থেকে ৩৬০ টাকায়। রুই, কাতল ও পাঙ্গাসসহ প্রায় সব ধরনের মাছের দামও বেড়েছে।

মুরগির মতো দাম বেড়েছে ডিমের ডজনে। বর্তমানে প্রতি ডজন ডিম বিক্রি হচ্ছে ১২৫ থেকে ১৪০ টাকায়। কয়েকদিন আগেও যা বিক্রি হয়েছিল ১২০ টাকায়। ভোক্তারা বলছেন, নির্বাচনকে ইস্যু বানিয়ে ব্যবসায়ীরা বাজারে কৃত্রিম সংকট তৈরি করেছেন। চাহিদার নামে মানুষের পকেট লুটে অতিরিক্ত মুনাফা করছেন তারা।

বরিশাল পোর্টরোডের বাজারে আসা বেসরকারি চাকরিজীবী সুরাইয়া জামান বলেন, শীতের মৌসুমে আগে কখনোই এত দামে সবজি কিনিনি। বছরের অন্যান্য সময়ের চেয়ে শীতকালে সবজির দাম কম থাকবে এটা সবার জানা। কিন্তু বাজারে এসে দেখলাম সব ধরনের সবজির দাম বাড়তি। সবকিছুই প্রায় দ্বিগুণ দামে বিক্রি হচ্ছে। সামান্য অজুহাতে পণ্যের দাম বেড়ে যায়, আর নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না সংশ্লিষ্টরা। এ নিয়ে বিপদে পড়তে হয় আমাদের মতো সাধারণ ক্রেতাদের।

সম্পর্কিত সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

কুমিল্লাকে উড়িয়ে প্রথম শিরোপা জয় বরিশালের

অবশেষে বিপিএলের শিরোপা জয়ের স্বাদ পেলো বরিশাল। এর আগে তিনবার ফাইনাল খেললেও শিরোপা ছুঁতে পারেনি দলটি। বিপিএলের দশম আসরের...