বরিশালে মোবাইল কোর্টের হানা

অবশ্যই পরুন

বরিশাল জেলা প্রশাসনের নিয়মিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজও বরিশাল নগরীতে মোবাইল কোর্ট অভিযান অব্যাহত আছে।

দেশের উৎপাদন ব্যবস্থা ঠিক রাখতে ইতোমধ্যেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে কল-কারখানা এবং শপিংমলসমূহ খোলা রাখারা অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এমতাবস্থায়, বরিশালের প্রতিষ্ঠানসমূহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরিচালিত হচ্ছে কিনা তা যাচাইকল্পে বরিশালের জেলা প্রশাসক এস, এম, অজিয়র রহমানের নির্দেশনায় নিয়মিতভাবেই বিভিন্ন দোকান, শপিং মূল এবং কারখানা পরিদর্শন করছে।

কিন্তু গত কয়েকদিনের শপিংমল সমূহে ক্রেতা বিক্রেতাদের মধ্যে কোন প্রকার স্বাস্থ্যবিধি মানার লক্ষন পরিলক্ষিত না হওয়ার আজ আবার পূনরায় বরিশাল জেলা প্রশাসন শপিংমল দোকানপাট বন্ধ ঘোষণা করেন।

আজ বরিশাল জেলা প্রশাসনের ২ টি ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা কালে অপ্রয়োজনীয় দোকান খোলা রেখে ঈদ কেনাকাটায় স্বাস্থ্যসুরক্ষা বিধি অমান্য করার ৯ টি প্রতিষ্ঠান এবং দুইজন ক্রেতাকে ২১ হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা করেন।

তারি ধারাবাহিকতায় আজ ২১ মে বৃহস্পতিবার সকালে বরিশাল নগরীর চকবাজার, বাজার রোড, কাঠপট্টি, ফলপট্টি, গীর্জা মহল্লা, সদর রোড, নতুন বাজার, চৌমাথা বাজার এলাকায় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ ও দ্রব্যমূল্যের বাজার দর মনিটরিং এর পাশাপাশি সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করেন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট শাহাদাৎ হোসেন এবং এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মেহরাজ শারবিন।

পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে বিভিন্ন স্থানে ঈদ কেনাকাটায় স্বাস্থ্যসুরক্ষা বিধি প্রতিপালন ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয়ে বিশেষ বাজার মনিটরিং অভিযান পরিচালনা কালে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে টহল অভিযান পরিচালনা করা হয় এবং সচেতনামূলক মাইকিং করা হয়।

বরিশাল নগরীর খেয়াঘাট, লঞ্চঘাট, সিটি মার্কেট, মহসিন মার্কেট, চকবাজার, গির্জামহল্লা, সদর রোড, কাকলির মোড়, বগুড়া রোড ও বটতলার মোড় এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট শাহাদাৎ হোসেন।

এসময় সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে অপ্রয়োজনীয় দোকান খোলা রাখায় দন্ডবিধি, ১৮৬০ এর ধারা ২৬৯ মোতাবেক ৩ টি দোকানে কে ৩ হাজার টাকা করে মোট ৯ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়।

অভিযান চলাকালে র‍্যাব ৮ এর একটি টিম সহায়তা করে। এদিকে নগরী বিভিন্ন এলাকায় মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেন মেহরাজ শারবিন।

এসনয় তিনি বরিশাল মহানগরের চকবাজার, গীর্জামহল্লা,বাজার রোড,পদ্মাবতী ও কাটপট্টি রোডে মোবাইল কোর্ট কার্যক্রম পরিচালনা কালে প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে দোকান খোলা রাখার অপরাধে ৬ টি দোকানের মালিককে ১২ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে পাশাপাশি শিশু সন্তান নিয়ে কেনাকাটার উদ্দেশ্যে দোকানে আসায় দুইজন ক্রেতাকে ২০০ টাকা করে মোট ৪০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

এসময় তিনি করোনা ভাইরাসের বিস্তার প্রতিরোধে সর্বক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব রক্ষা ও স্বাস্থ্যবিধি পরিপালনের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে উপস্থত সকলকে অবহিত ও সচেতন করা হয়।

মোবাইল কোর্টকে আইনানুগ সহযোগিতা প্রদান করেন পুলিশের একটি টিম। ঈদের কেনাকাটায় সামাজিক দূরত্ব রক্ষা এবং স্বাস্থ্যবিধি পরিপালন নিশ্চিত করতে বরিশাল জেলা প্রশাসনের এই অভিযান চলমান থাকবে বলে জানান কর্তব্যরত এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট।

সম্পর্কিত সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

ডাসারে পানিতে ডুবে দুই শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু

মাদারীপুরের ডাসার উপজেলার কাজীবাকাই দক্ষিণ মাইজপাড়া পানিতে পড়ে দুই চাচাতো বোনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১ টার দিকে উপজেলার...