বরিশাল কেন্দ্রীয় বাস টারমিনালের চালক ও শ্রমীক সদস্যদের জন্য একমাত্র লিটন মোল্লাই ভরসা

অবশ্যই পরুন

বরিশাল কেন্দ্রীয় নতুল্লাবাত বাস টারমিনালে মাসব্যাপি বসে থাকা ২ শতাধিক দুরপাল্লা ও অভ্যন্তরীন যাত্রীবাহি পরিবহনের চালক,হেলপার সহ বাস টারমিনালের প্রায় ৪ শতাধিক শ্রমীক অর্ধাহারে-অনাহারে জীবন-যাপন করে চলছে।

খোঁজ নেই বাস মালিক সমিতি ও শ্রমীক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের। গত একমাসে এবারের জন্য এদের খোঁজ নেইনি কোন সংগঠন। একমাত্র বরিশাল সদর উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও বাস মালিক সমিতির ক্ষুদ্র সদস্য লিটন মোল্লা এ পর্যন্ত তিন তিনবার অনাহারী শ্রমীকদের জন্য চাল,ডাল,তেল সহ নিত্য প্রয়োজনীয়তার পাশাপাশি পবিত্র রমজানের জণ্য খাদ্য উপহার দিয়ে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে পাশে এসে দাড়িয়েছে।

আজ শুক্রবার (১লা মে) বরিশাল কেন্দ্রীয় নথুল্লাবাত বাস টারমিনালে গেলে এমন তথ্য নিয়ে বিভিন্ন শ্রমীক সদস্যরা পাশে এসে তাদের অনাহারী জীবনের কথা তুলে ধরেন।

এসময় ২টি পিকাপ বোঝাই করে ২শত শ্রমীকের জন্য ১০ কেজি চাল,১ কেজি চিড়া,১কেজি গুড়,২ কেজি আলু ও ১ টা সাবান নিয়ে হাজির হন কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান লিটন মোল্লা।

এর পূর্বে বাস টারমিনালের শ্রমীক সদস্যরা বলেন গত মাসের ২৬ই এপ্রিল থেকে টারমিনাল থেকে দুরপাল্লা ও অভ্যন্তরীন রুটের সকল প্রকার যাত্রীবাহী যান-বাহন সরকারের নির্দেশে চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

প্রথম কয়েকদিন জমানো থাকা পুজি দিয়ে সংসার চালাবার পর হাতে থাকা সম্ভল শেষ হয়ে যাবার পর থেকে এক কথায় বলা যায় ১মাস যাবত বেকার হয়ে পড়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছি।

এর মাঝে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের পক্ষ থেকে আমাদের শ্রমীকদের জন্য ২ টন চাল দিয়ে সহযোগীতা করেছে।

এছাড়া এখন পর্যন্ত সরকারীভাবে আমাদের খবর আর কেহ রাখেনি।এসময় তারা আরো বলেন সরকারী সাহয্যের কথা কেন বলব আমরা বছরের পর বছর মালিক ও শ্রমীক সংগঠনে চাঁদা দিয়ে যাচ্ছি আমাদের সেসকল শ্রমীক নেতাদের কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না বলে এমন আক্ষেপ করে অনাহারী শ্রমীক সদস্যরা তাদের মালিক ও শ্রমীক নেতাদের বিরেুদ্ধে ক্ষোভ প্রকতাশ করেন।

এক প্রর্যায়ে শ্রমীকদের হাতে ইউপি চেয়ারম্যান লিটন মোল্লা শ্রমীকদের উর্দ্দেশ্য করে বলেন আমার নেতা বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ ।

তার নির্দ্দেশ্যে আমি এসকল খাদ্য সামগ্রী আপনাদের মাঝে উপহার হিসাবে দিয়ে যাচ্ছি আমার যা কিছু আছে আমি তাদিয়ে বর্তমান সমস্য থাকাকালীন আপনাদের পাশে আছি ও থাকার অঙ্গিকার করেন।

এসময় তিনি প্রায় ২ শতাধিক বেকার হয়ে বসে থাকা শ্রমীক ও অসহায় দুস্থদের হাতে খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন।

এব্যাপারে বরিশাল কেন্দ্রীয় বাস টারমিনালের শ্রমীক ইউয়িনের সভাপতি ও ২৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর হোসেনের মোবাইলে বশে কয়েকবার কল করা হলে তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

সম্পর্কিত সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

কালকিনিতে বিষাক্ত সাপের ছোবলে মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু

মাদারীপুরের কালকিনিতে মাটির গর্তের মধ্যে থেকে মাছরাঙা পাখির ছানা ধরতে গিয়ে বিষাক্ত সাপের ছোবলে আবু হুমাইদ (১১) নামে এক...