বানারীপাড়ায় মামলার স্বাক্ষী হওয়ায় ঘরে আগুন দেয়ার অভিযোগ

অবশ্যই পরুন

বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার চাখার ইউনিয়নের একটি মামলার স্বাক্ষী হওয়ায় বিপ্লব নামের এক ব্যক্তির ঘরে আগুন দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আর এ বিষয়ে মামলার সাক্ষী মো. বিপ্লবের বড় ভাই মৃত আ.জব্বারের স্ত্রী শাহিদা বেগম বাদী হয়ে বানারীপাড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন বলে জানাগেছে।

ওই অভিযোগে মো. মাসুম বিল্লাহ (২৭),মো. মহিয়ান (৫২),আবু সুফিয়ান ইরান (৪৫),মো. মিজান আকন (৫০),মো. নাঈম (২৩) কে নামিয় ও আরও ৪/৫ জনকে অজ্ঞাত বিবাদী করা হয়। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে,গত ২৪ মে বিকালে ঈদের জামাতকে কেন্দ্র করে বড় ভৈৎসর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পশ্চিমপাশে স্থানীয়দের মধ্যে মারধরের ঘটনা ঘটে। ওই মারধরের ঘটনার রাতে মো. বাবুল সিকদার বাদী হয়ে বানারীপাড়া থানায় একটি মামলা করেণ। মামলা নং-১১ পেনাল কোড ।

তার করা মামলায় শাহিদা বেগমের দেবর বিপ্লব হাওলাদার প্রত্যক্ষ স্বাক্ষী হয়। এরপর থেকেই বাবুল সিকদারের করা মামলার আসামীরা ক্ষিপ্ত থাকে বিপ্লবের পরিবারের ওপরে। তার রেশ ধরেই ২৯ মে শুক্রবার গভীর রাতে শাহিদা বেগমের করা অভিযোগের বিবাদীরা বিপ্লবের বসত ঘর লাগোয়া পাকের করে আগুন দেয় বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ওই অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয় পাকের ঘরে আগুন দেয়ার আগে বিবাদীরা বিপ্লব ঘরে আছে মনে করে গালিগালাজ দিতে থাকে। শাহিদা বেগমসহ অন্যরা বসত ঘরের জানালা খুলে বিপ্লব ঘরে নেই জানালে তারা (বিবাদীরা) বসত ঘর জালিয়ে দেয়ার উদ্দেশ্যে পূর্ব পাশের পাকের ঘরে আগুন দেয়।

এ সময় তাদের ডাকচিৎকারে বাড়ির আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে বিবাদীরা স্থান ত্যাগ করেণ। এগিয়ে আসা লোজন এক পর্যায়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন। ফলে বড় ধরণের কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। তবে পাকের ঘরটি পুড়ে যায়। এ বিষয়ে বিবাদীদের সমর্থীত একটি সূত্রে জানা গেছে বিপ্লবদের পাকের ঘরে আগুন দেয়ার বিষয়টি তদন্ত করলেই কিছু রহস্য বেড়িয়ে আসতে পারে।

সম্পর্কিত সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

কুয়াকাটা পর্যটকের পদভারে মুখরিত

পরিচ্ছন্ন সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটায় পর্যটক দর্শনার্থীর ভিড় বেড়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে পর্যটকের আনাগোনা শুরু হয়। ক্রমশ পর্যটকের ভিড় বাড়তে থাকে।...